• উদ্ভাস আয়োজিত “উচ্চশিক্ষা বৃত্তি প্রদান“ অনুষ্ঠানে সাবেক বুয়েট ১ম উদ্ভাসিয়ান (অনীক`০৯, জুনায়েদ`১০, আশিক`১১ ও তৃপ্ত`১২) দের সাথে এবারের বুয়েট আর্কিটেকচার ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম ১৫ জন –এ উদ্ভাস থেকে চান্সপ্রাপ্ত ১৫ উদ্ভাসিয়ান।

  • বুয়েট ভর্তি পরীক্ষা-২০১৭ উদ্ভাসিত তারা..

  • উদ্ভাস আয়োজিত “উচ্চশিক্ষা বৃত্তি প্রদান“ অনুষ্ঠানে সাবেক বুয়েট ১ম উদ্ভাসিয়ান (অনীক`০৯, জুনায়েদ`১০, আশিক`১১ ও তৃপ্ত`১২) দের সাথে এবারের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়-এ ১ম স্থান অধিকারী কৃতী ৯ উদ্ভাসিয়ান।

  • উদ্ভাস -এর পরিচালক সোহাগ ভাইয়ার নিকট থেকে ৪৫,০০০/- টাকার শিক্ষাবৃত্তি গ্রহণ করছে “আমরাই সেরা-২০১৩” প্রতিযোগিতার গ্রুপভিত্তিক পর্বের চ্যাম্পিয়ন “নটর ডেম কলেজ” -এর তিন কৃতী শিক্ষার্থী- রাহুল, অমিত ও তানজীম।

  • BUET ভর্তি পরীক্ষা ২০১২ তে উদ্ভাস সস্পর্শ করেছে অনতিক্রম্য ও অভূতপূর্ব এক মাইলফলক। মেধাতালিকায় শীর্ষ ২০ এর প্রত্যেকেই ছিল উদ্ভাস এর। উদ্ভাস পরিচালকদ্বয়ের সংস্পর্শে সেই কৃতী মানুষদের স্বতঃস্ফূর্ত সম্মিলন। উদ্ভাসের এই দুর্বার বিজয়রথ দুরন্ত বেগে ছুটে চলুক দুর্জয় গন্তব্যে।

  • “স্পন্দন” একটি স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচী। প্রয়োজনের ভিত্তিতে তাৎক্ষণিকভাবে উদ্ভাস পরিবারের কারো পক্ষ থেকে রক্তদান করা হয়। রক্তের সূত্রে মানুষে-মানুষে আত্মিক বন্ধন গড়ে তোলাতেই স্পন্দনের সার্থকতা।

  • উদ্ভাস আয়োজিত “উচ্চশিক্ষা বৃত্তি প্রদান“ অনুষ্ঠানে সাবেক বুয়েট ১ম উদ্ভাসিয়ান (অনীক`০৯, জুনায়েদ`১০, আশিক`১১ ও তৃপ্ত`১২) দের সাথে এবারের বুয়েট ইঞ্জিনিয়ারিং ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম ২৫ জন –এ উদ্ভাস থেকে চান্সপ্রাপ্ত ২৪ উদ্ভাসিয়ান। (চতুর্দশ মেধাস্থান ব্যতিরেকে)

  • ২০১৪ সালে উল্লেখযোগ্য বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় ১ম স্থান অধিকারী কৃর্তী উদ্ভাসিয়ান

  • ২০১৫ সালে উল্লেখযোগ্য ১২ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় ১ম স্থান অধিকারী কৃর্তী ৭ উদ্ভাসিয়ান

  • ২০১৬ সালে উল্লেখযোগ্য ১১ টি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় ১ম স্থান অধিকারী কৃর্তী ১১ উদ্ভাসিয়ান

 “বিকল্প অপশন হাতে রাখো,

ভর্তিযুদ্ধে এগিয়ে থাকো”

 

HSC বিজ্ঞান শিক্ষার্থী বন্ধুরা,

আসসালামু আলাইকুম। শিক্ষা জীবনের একটা গুরুত্বপূর্ণ ধাপ তোমরা অতিক্রম করতে যাচ্ছ। উদ্ভাস-উন্মেষ শিক্ষা পরিবারের পক্ষ থেকে তোমাদের জন্য শুভকামনা। JSC, SSC ইত্যাদি যে ধাপগুলো তোমরা ইতিমধ্যে অতিক্রম করে এসেছো, সেগুলোও অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। তবে HSC ধাপটা সে তুলনায় একটু বেশিই গুরুত্বপূর্ণ এজন্য যে, এর পরই তোমরা অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় যার সফলতার উপর ভিত্তি করেই নির্ধারিত হবে উচ্চশিক্ষায় তোমার  স্বপ্নের ঠিকানা- বুয়েট, মেডিকেল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কিংবা অন্য কোন প্রতিষ্ঠান। তবে স্বপ্নরাজ্যে বিচরণের পথ যতটা মসৃণ, বাস্তবে স্বপ্নপূরণের পথ ততটাই বন্ধুর। তবুও কেউ না কেউ তো সফল হয়। হ্যাঁ বন্ধুরা, সফল সে-ই হবে যে নিতে পারবে সঠিক সিদ্ধান্ত, যার থাকবে স্বীয় চেষ্টা, যার উপর থাকবে সৃষ্টিকর্তার দয়াসৃষ্টজীবের দোয়া। হ্যাঁ, সফলতা মানে এগুলোরই সমন্বয়। আর এই সমন্বয়ে তোমাদের ভূমিকা-ই মুখ্য। আমরা পালন করতে পারি সহায়ক ভূমিকা। সময়ের বিবর্তনে ভর্তি পরীক্ষা আজ ভর্তিযুদ্ধের নামান্তর। ভর্তি পরীক্ষা মানেই একটি আসনের বিপরীতে প্রতিযোগী ২০-৫০ জন। চান্স পাবে ১ জন, ব্যর্থ হবে ১৯-৪৯ জন। ব্যর্থতার হারই বেশি। বুদ্ধিমানেরা তাই সিদ্ধান্ত নেয় বিকল্প অপশন হাতে রেখে। তাই আর সিদ্ধান্তহীনতা নয়; স্থির কর তোমার পছন্দ আর নিয়ে নাও সময়োপযোগী সঠিক সিদ্ধান্ত : 

 

ইঞ্জিনিয়ারিং যাদের প্রথম পছন্দ তাদের জন্য

ইঞ্জিনিয়ারিং+Biology @উদ্ভাস

 অথবা

ভার্সিটি ‘ক’ যাদের প্রথম পছন্দ তাদের জন্য

ভার্সিটি ‘ক’+GK বাংলা English @উদ্ভাস

‘‘লেগে থাকো সৎভাবে, স্বপ্নজয় তোমারই হবে’’